বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার কত

এই বিকাশ হচ্ছে ব্রাক ব্যাংক একটি প্রতিষ্ঠান। অর্থাৎ এটি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানি। এই বিকাশের সদর দপ্তর স্বাধীনতা টাওয়ার, ১, বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ জাহাঙ্গীর গেট, ঢাকা ক্যন্টনমেন্ট, ঢাকা ১২০৬, বাংলাদেশ। আর এই বিকাশ বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন ভিত্তিক অর্থ স্থানান্তর সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান। বিকাশ গ্রাহকরা *২৪৭ # ডায়াল করে অথবা বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে নগদ অর্থ জমা করা, নগদ অর্থ উত্তোলন করা।

এবং অন্যজনের কাছে বিকাশ নাম্বারে টাকা পাঠানো, টাকা যোগ করা, রেমিট্যান্স, মোবাইল রিচার্জ, মূল্য প্রদান ও বিল দেয়া ইত্যাদি সেবাগুলো নিতে পারেন। তবে বিভিন্ন সময় এই বিকাশ  গ্রাহকগণ বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে থাকেন। তবে এক্ষেত্রে গ্রাহকদের বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার প্রয়োজন পড়ে। যাতে বিকাশ ব্যবহারকারীর আগত সমস্যা খুব সহজে সমাধান করা যায়।

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার

বর্তমানে বহু প্রতারক চক্র রয়েছে,যাদের দ্বারা সাধারণ জনগণ প্রতারিত হয়ে থাকে। এবং বিকাশ গ্রাহকদের থেকে লাখ লাখ টাকা এই প্রতারক চক্র জালিয়াতি নিয়ে থাকে। তবে এক্ষেত্রে বিকাশের পিন নাম্বার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়াও এই পিন নাম্বার পরিবর্তন করা এর থেকেও বেশি। এছাড়াও যাদের সিম নাম্বার হারিয়ে যায় তাদের অতিসত্বর বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ করে জানানো উচিত।

অতঃপর বহু সমস্যা সমাধানের উদ্দেশ্যে বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার একজন ব্যক্তির খুব গুরুত্বপূর্ণ।  তথ্য হালনাগাদ করার পর অ্যাকাউন্ট একটিভ না হলে কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ করা, পিন নাম্বার ভুলে গেলে পুনরায় পিন নাম্বার সংরক্ষণ করা সহ বিভিন্ন সমস্যা সমাধান করতে কাস্টমার কেয়ারের যোগাযোগ করতে হয়। এজন্য বিকাশ ব্যবহারকারীদের জন্য বিকাশের কাস্টমার কেয়ারের নাম্বার  এখানে উল্লেখ করা হয়েছে।

বিকাশ হেল্প লাইন নাম্বার

আপনি যদি বিকাশ ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তাহলে নিচের দেওয়া নাম্বারে কল করে আপনি বিকাশ সম্পর্কে তো যেকোন তথ্য জানতে পারবেন। আর এই বিকাশ প্রতিনিয়ত গ্রাহকদের উন্নতমানের সেবা প্রদান করে থাকে।

এবং বিকাশ ব্যবহারকারীদের সদা সর্বদা যে কোন সমস্যা সমাধানের জন্য প্রস্তুত থাকে। Bkash customer care number 16247 OR 02-55663001. এই নাম্বারে আপনি আপনার বিকাশ সম্পর্কে তো যেকোন তথ্য জানতে পারবেন। অতএব একটু নিচে প্রবেশ করে বিকাশের অফিস নাম্বার সহ বিকাশ কল সেন্টার ইত্যাদি জেনে নিন।

বিকাশ অফিস নাম্বার

আপনি বাংলাদেশের যেখানে অবস্থান করেন না কেন 16247 নাম্বারে কল করলে একজন সার্ভিস প্রোভাইডার এর সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। অর্থাৎ এটি হচ্ছে বিকাশ অফিস নাম্বার। এই নাম্বারটা  জেনে রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যেকোনো ধরনের খরচ ছাড়া আপনি এই বিকাশ অফিসে ফোন দিতে পারবেন।

কোন প্রকার সার্ভিস চার্জ আপনার থেকে রাখা হবে না। এছাড়াও বিকাশ অফিসের সাথে যোগাযোগ করার অন্যরকম একটি পদ্ধতি হচ্ছে বিকাশ লাইভ চ্যাট করা। এ লিংক https://livechat.bkash.com/ হচ্ছে বিকাশের সাথে সরাসরি লাইভ চ্যাট করা। অর্থাৎ এদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করা সব থেকে জন্য প্রিয় মাধ্যমে চেয়ে লাইভ চ্যাট।

বিকাশ কল সেন্টার নাম্বার

বিকাশ তাদের গ্রাহকদের সেবা প্রদানের লক্ষ্যে জরুরী ভিত্তিতে সেবা কেন্দ্রে ব্যবস্থা করেছেন। জরুরী ভিত্তিতে পিন নাম্বার পরিবর্তন করা। আপনার যেকোনো তথ্যের প্রয়োজনে এবং তথ্যের যথার্থতা বা নির্ভরযোগ্যতা যাচাই করার জন্যে বিকাশ কল সেন্টার নাম্বার ১৬২৪৭-ই একমাত্র সঠিক এবং বিশ্বাসযোগ্য উৎস।

অতঃপর সপ্তাহে ২৪ ঘন্টায় যোগাযোগের জন্য বিকাশ কল সেন্টারে যোগাযোগ করুন। কল সেন্টার নাম্বার বিকাশ হেল্পলাইনে কল করতে পারেন, এমনকি গুরুত্বর সমস্যায় তাদের সাথে ইমেইলে যোগাযোগ করতে পারেন। অতএব আরো বিস্তারিত তথ্য জানতে একটু নিচে প্রবেশ করে সকল তথ্য খুব সহজে জেনে নিন।

বিকাশ হেল্পলাইন চ্যাট

যারা নতুন বিকাশ ব্যবহারকারী রয়েছেন, এবং নতুন করে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করতে চাচ্ছেন। তাদেরকে অবশ্যই তথ্য হালনাগাদ করতে হয়। তথ্য হালনাগাদ করার পর অনেক সময় প্রায় ক্ষেত্রেই বিকাশ একাউন্ট একটিভ হয় না। এক্ষেত্রে জরুরি ভিত্তিতে বিকাশের helpline নম্বর ব্যবহার করে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

এমনকি সরাসরি যোগাযোগ করতে চাইলে বিকাশ হেল্পলাইন চ্যাট করতে পারেন। আর তাদের সাথে যোগাযোগ করার সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে বিকাশ হেল্পলাইন চ্যাট। অতএব এই লিংকে https://livechat.bkash.com/ প্রবেশ করলে তাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারবেন।

বিকাশ অভিযোগ নাম্বার

বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য বিকাশ কাস্টমার কেয়ারের নাম্বার অনেকে অনেক সন্ধান করে থাকেন।  এবং এ সমস্যাকে বিভিন্ন সময় অভিযোগ হিসেবে ধরা হয়ে থাকে। তবে ক্ষেত্রে অনেকেই অভিযোগ নাম্বার অনুসন্ধান করতে গিয়ে ভুল নাম্বার এই যোগাযোগ করে ফেলেন।

অতএব আপনার যদি বিকাশ নাম্বার নিয়ে অথবা বিকাশ একাউন্ট নিয়ে কোন অভিযোগ থেকে থাকে তাহলে এই ১৬২৪৭ নাম্বারে যোগাযোগ করুন। এই নাম্বারে যোগাযোগ করলে আপনার থেকে কোন সার্ভিস চার্জ রাখা হবে না।

বিকাশ কাস্টমার সার্ভিস নাম্বার কত?

আপনার যদি মোবাইল ফোন হারিয়ে যায় অ্যাকাউন্ট ধারী নাম্বার সহ, তাহলে জরুরী ভিত্তিতে বিকাশের কাস্টমার সার্ভিস নাম্বার সংগ্রহ করে তাদের সাথে যোগাযোগ করুন। তোমাকে যে কোন তথ্যের প্রয়োজনে এবং তথ্যের যথার্থতা এবং নির্ভরযোগ্য যাচাই করার ক্ষেত্রে বিকাশ কাস্টমার সার্ভিস নাম্বার অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

অর্থাৎ ১৬২৪৭ কল করলে আপনি তাদের থেকে যেকোন সার্ভিস পেয়ে যাবেন বিনামূল্যে। এমনকি আপনার বিকাশ নিয়ে যদি কোন অভিযোগ থেকে থাকে তাহলে সেই বিষয়টিও আপনি তাদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন। অনেক সময় টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে সমস্যা হয়। সেই সমস্যা সমাধান করতেও কাস্টমার সার্ভিস নাম্বারে যোগাযোগ করুন। 

বিকাশ হেড অফিস ঢাকা

এ ঢাকা বিভাগে বিভিন্ন জায়গায় বিকাশের অফিস রয়েছে। তবে আপনার যদি কোন সমস্যা থেকে থাকে তাহলে এই অফিসে সরাসরি এসে যোগাযোগ করতে পারবেন। অথবা নিচে দেওয়া ইমেইল এবং ফোন  নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারবেন।

অতএব ঠিকানাটি হচ্ছে: স্বাধীনতা টাওয়ার, ১ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ জাহাঙ্গীর গেট, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট, ঢাকা -১২০৬ এবং এই বিকাশের হেড অফিসের যোগাযোগ করার জন্য ফ্যাক্স নাম্বার হচ্ছে ০০৮৮-০২-৯৮৯৪৯১৬।

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার ঢাকা

যারা ঢাকার বিভিন্ন শহরে বসবাস করেন তাদের জন্য বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ করা খুব সহজ। কারণ ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় বিকাশ কাস্টমার কেয়ার অবস্থিত রয়েছে। তারা চাইলে ফোনের যোগাযোগ করতে পারবেন। এমনকি তাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন। অথবা বিকাশ কাস্টমার কেয়ার ঢাকায় অবস্থিত রয়েছে অনেকগুলো শহর জুড়ে। যেমন

  • বন্ধন ভিডিও এন্ড টেলিকম সেন্টার, আটি বাজার, কেরানীগঞ্জ, ঢাকা
  • ড্রিমস বিজনেস সেন্টার, চান ম্যানশন, রোড ১/২, ব্লক- বি, দোকান- ০৬, সেকশন- ০৬,মিরপুর, ঢাকা।
  • সূর্য মোবাইল কর্নার, ইলিশকল বাস স্ট্যান্ড, বালিয়াকান্দি, রাজবাড়ী
  • সায়েবা টেলিকম, আর কে প্লাজা, ভবের চর, গজারিয়া, মুন্সীগঞ্জ
  • নুরিয়া গিফট এন্ড টেলিকম, আশরাফাবাদ মেইন রোড, কুমিল্লাপাড়া, কামরাঙ্গীরচর, ঢাকা-১২১১
  • আফিয়া মেডিসিন কর্নার, ১৭৫ নং খোন্দকার টাওয়ার, দেওভোগ, নারায়ণগঞ্জ
  • অনি এন্টারপ্রাইজ, মৌলভীপাড়া বাজার, দেলদুয়ার, টাঙ্গাইল
  • মোবাইল জোন, কলেজ রোড, নগরপুর বাজার, নগরপুর, টাঙ্গাইল।
  • আলিফ টেলিকম, এস এ এস টাওয়ার(২য় তলা), শাহ কামাল রোড, সখিপুর, টাঙ্গাইল।
  • মিতা টেলিকম সেন্টার, কোনাপাড়া বাস স্ট্যান্ড, সুখি টেক্সটাইল মার্কেট, ডেমরা, ঢাকা
  • রিপন ইলেক্ট্রিক এন্ড মোবাইল জগত, নবাবগঞ্জ বাজার, নবাবগঞ্জ ঢাকা, কলাকোপা, ঢাকা

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার চট্টগ্রাম

বাংলাদেশের দক্ষিনে পূর্বাঞ্চলে এই চট্টগ্রাম অবস্থিত। বাংলাদেশের জন্য এই চট্টগ্রাম শহর অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নতির দিক বিবেচনা চট্টগ্রাম অনেকটা সাহায্য করে থাকে। চট্টগ্রামে যারা বিকাশ ব্যবহার করে থাকেন তারা তাদের যে কোন সমস্যা সমাধানের জন্য কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ করতে পারেন।

যে কোন সমস্যা হলে হেল্পলাইন নাম্বার,এবং কাস্টমার কেয়ারে ফোন করে যোগাযোগ করুন। অতএব চট্টগ্রামে বিকাশ কাস্টমার কেয়ার অবস্থিত রয়েছে ইসলাম টাওয়ার, নীচতলা, ৫৯ সিডিএ এভিনিউ, মুরাদপুর, চট্টগ্রাম।

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার রংপুর

রংপুর বাংলাদেশের অনেকটা গুরুত্বপূর্ণ একটি শহর বলা চলে। যারা রংপুরে বসবাস করছেন তাদের বিকাশ নিয়ে কোন সমস্যার সম্মুখীন হলে কাস্টমার কেয়ারের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন নিচে দেওয়া নাম্বারে। এছাড়াও আপনারা সরাসরি এই কাস্টমার কেয়ারে উপস্থিত থেকে আপনার সমস্যা সমাধান করতে পারবেন।

অতঃপর নিচের দেওয়া বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার রংপুরের ঠিকানা দেখে নিন। অতএব এই ঠিকানায় আপনি সরাসরি তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। এ জেড টাওয়ার, দ্বিতীয় তলা, ৩৪-৩৫ ষ্টেশন রোড, রংপুর সদর, রংপুর। আর বিকাশের কাস্টমার কেয়ার নাম্বার হচ্ছে ১৬২৪৭

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার সিলেট

এ বিকাশ পুরো বাংলাদেশ জুড়ে বিস্তৃত। দেশের সর্বত্র এই বিকাশের লেনদেন সংগঠিত হয়ে থাকে। মাঝে মধ্যে এই লেনদেন প্রক্রিয়ায় গ্রাহকগণ বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে থাকেন। এমতাবস্থায় বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে অবস্থিত প্রোভাইডারদের সাথে যোগাযোগ করার প্রয়োজন হয়।

অতঃপর যারা সিলেটে বসবাস করছেন, তাদের সুযোগ-সুবিধা প্রদান করার জন্য সিলেটে বিকাশ কাস্টমার কেয়ার রয়েছে। এবং তাদের সাথে খুব সহজে যোগাযোগ করতে পারবেন। নিচের দেওয়া যোগাযোগ ঠিকানায় ভালোভাবে দেখে নিন। অতএব সিলেটের বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার এখান থেকে জেনে নিন। তাই সিলেট অবস্থিত বিকাশের কাস্টমার কেয়ার নাম্বার ঠিকানা হচ্ছে: জে আর টাওয়ার, দ্বিতীয় তলা, ২৩ আবাস, জেল রোড, সিলেট- ৩১০০

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার বরিশাল

 নিচে দেওয়া উল্লেখিত যোগাযোগ ঠিকানা হচ্ছে বরিশালের। অতএব যারা বরিশালে বসবাস করছেন তারা নিচের দেওয়া যোগাযোগ ঠিকানা দেখে নিন। আপনার বিকাশ সমস্যা সমাধান করতে কাঙ্ক্ষিত সেবা পেতে নিচের যোগাযোগ ঠিকানা উপকারে আসতে পারে। বিকাশের কাস্টমার কেয়ার হচ্ছে রহমত মঞ্জিল কমপ্লেক্স, দ্বিতীয় তলা, গোরাচাঁদ দাস রোড, বটতলা, বরিশাল

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার রাজশাহী শাখা

এই পোস্টে যারা রাজশাহী বিভাগে অন্তর্ভুক্ত ব্যক্তি রয়েছেন। তারা এই যোগাযোগ ঠিকানা সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন। যোগাযোগ ঠিকানা হচ্ছে ৬১ চাঁদ সন্স শপিং কমপ্লেক্স, দ্বিতীয় তলা, নিউ মার্কেট, বোয়ালিয়া, রাজশাহী।

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার খুলনা শাখা

বাংলাদেশের অন্যান্য জেলা এবং বিভাগে এই বিকাশের কাস্টমার কেয়ার রয়েছে। এছাড়া যারা খুলনায় বসবাস করেন তারাও তাদের নিকটস্থ এলাকায় সরাসরি যোগাযোগ করতে পারবেন। অর্থাৎ বিকাশের খুলনা জেলার কাস্টমার কেয়ার ঠিকানা হচ্ছে:ইসরাক প্লাজা, দ্বিতীয় তলা, প্লটঃ ৪৩-৪৪, মজিদ সরণী, শিব বাড়ী মোড়, খুলনা।

বিকাশ কাস্টমার কেয়ার বন্ধ থাকে কবে?

সকাল ১০ টা থেকে ৭টা পর্যন্ত সরকারি ছুটি ব্যতীত  খোলা থাকে। অর্থাৎ আপনি সকাল দশটার পর থেকে যেকোনো সময় তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। অনেক সময় বিকাশের পিন নাম্বার ভুলে যাওয়া।

তথ্য হালনাগাদের সমস্যা সহ বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য বিকাশ কাস্টমার কেয়ারের সাথে যোগাযোগ করতে হয়। অর্থাৎ সকাল ১০ টা থেকে ৭ টা পর্যন্ত। এবং শুক্রবার ও সরকারি ছুটি ব্যতীত  সকাল ১০ টা থেকে ৬ ঘটিকা পর্যন্ত বিকাশ কাস্টমার প্রোভাইডারদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন।

বিকাশ থেকে সর্বোচ্চ কত টাকা রিচার্জ করা যায়?

যেকোনো একাউন্ট ধারী একজন বিকাশ একাউন্ট হোল্ডার যেকোনো সময় তার ব্যক্তিগত একাউন্টে সর্বোচ্চ ৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত রাখতে পারবেন। এবং তার বিকাশ একাউন্ট থেকে যেকোনো প্রিপেইড নাম্বারে সর্বোচ্চ 1 হাজার টাকা এবং পোস্টপেইড নাম্বারে সর্বোচ্চ ৫০০০ টাকা মোবাইল রিচার্জ করতে পারবেন।

শেষ কথা 

আশা করতেছি আপনারা এখান থেকে বিকাশ কাস্টমার কেয়ার নাম্বার সহ আরো বিভিন্ন তথ্য জানতে পেরেছেন। বিকাশ কল সেন্টার নাম্বার বিকাশ হেল্পলাইন চ্যাট ইত্যাদি সম্পর্কে ইতিমধ্যে হয়তো আপনারা জেনে নিয়েছেন। এই পোস্ট থেকে উপকৃত হলে অবশ্যই আপনার আশেপাশের ব্যক্তিদেরকে  শেয়ার করে জানিয়ে দিবেন। ধন্যবাদ

Leave a Comment