শরীরের ওজন কমানোর সহজ উপায় জানুন

অতিরিক্ত ওজন শরীরে বহন করতে কেউই চায় না। অতিরিক্ত ওজন ধারী ব্যক্তিদের দেখতে অতটা সৌন্দর্য লাগে না। তবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ওজন কমানোর প্রয়োজন হয়। শরীরকে সুস্থ রাখতে ওজন কমানোর প্রয়োজন হতে পারে। আবার বিশেষ অস্ত্র পাচারের পূর্বেও রোগীর জন্য ওজন কমানোর দরকার হয়ে পড়ে। তবে কিভাবে শরীরকে সুস্থ রেখে আপনি ওজন কমাবেন তা হচ্ছে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

তবে এক মাসে ৪ থেকে ৫ কেজি পর্যন্ত ওজন কমানো সম্ভব। তবে এর জন্য আপনার খাওয়া-দাওয়া নিয়ন্ত্রণ সহ শরীরের বিভিন্ন দিকে নজর রাখতে হবে। এবং আপনার নির্দিষ্ট একটি অভ্যাসের মধ্য দিয়ে চলতে হবে। এবং কিছু অভ্যাস ত্যাগ করার প্রয়োজন হতে পারে। তবে অতিরিক্ত ওজনধারী ব্যক্তির জন্য ওজন কমানোর উপায় গুলো অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

ওজন কমানোর উপায়

শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমানোর ক্ষেত্রে সুষম খাবারের বিকল্প কিছু নেই এবং সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ব্যায়াম। খাওয়া-দাওয়ার উপর নির্ভর করে হয়তো শরীরের ওজন কিছুটা কমাতে পারবেন। তবে ব্যায়াম করে যারা শরীরে ওজন কমিয়ে থাকে, তাদের শরীর অনেকটাই সুস্থ থাকে। তাই ব্যায়াম করার দিক দিয়ে সর্বোচ্চ মনোযোগ দেওয়া উচিত।

আপনি যে খাবারই আপনার ওজন কমানোর তালিকায় রাখুন না কেন। প্রতিদিন আপনাকে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ব্যায়াম করতে হবে। কঠোর ব্যায়াম না করতে পারলেও আপনাকে হালকা ব্যায়াম অবশ্যই করতে হবে। বিভিন্ন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করার পরবর্তী এবং গুরুত্বপূর্ণ ধাপ গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হচ্ছে দুশ্চিন্তা থেকে দূরে থাকা, অতিরিক্ত টেনশন করা যাবেনা।

অনেক সময় মোটা হওয়ার ক্ষেত্রে যেমন বিশ্রামকে গুরুত্ব দেওয়া হয়ে থাকে। তেমনি ওজন কমানোর খাওয়া-দাওয়ার পরেই বিশ্রাম বা পর্যাপ্ত ঘুমের কথা বলা হয়ে থাকে। মোটা হতে গেলে যেমন অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ করতে হয়। ঠিক তার উল্টো চিকন হতে গেলে আপনার খাওয়া-দাওয়া বেশ খানিকটা কমিয়ে দিতে হবে অর্থাৎ আপনাকে ডায়েট করতে হবে।

মেয়েদের দ্রুত ওজন কমানোর উপায়

শরীরে বাড়তি ওজন থাকলেই থাকে নানা প্রকার ঝামেলা এবং রোগ শোক। শরীরের বাড়তি ওজন মানেই ঝামেলা। বিশেষ করে মেয়েদের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ওজন অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকি থাকে ৬৬ শতাংশ। এবং তাদের অতিরিক্ত ওজন হওয়ার কারণে শারীরিক ও হরমোন জনিত বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে। তবে এই ক্ষেত্রে মেয়েদের দ্রুত ওজন কমানোর উপায় এখানে উল্লেখ করা হয়েছে।

  • পর্যাপ্ত পানি পান করা।
  • ব্ল্যাক কফি।
  • রোজা।
  • লেবু পানি খেতে পারেন।
  • আঁশযুক্ত খাবার খেতে পারেন।
  • গ্রিন টি খেতে পারেন।
  • কার্বোহাইড্রেট খাবার পরিমিত খাওয়া।
  • ফল ও শাকসবজি খাওয়া।
  • প্রোবায়োটিক সাপ্লিমেন্ট নিতে পারেন।
  • ব্যায়াম করা।
  • খুব সকালে ঘুম থেকে ওঠুন এবং লেবু পানি পান করুন।
  • ফাইবার বা আশযুক্ত খাবারের পরিমাণ বাড়ান।

তো এই উপরের তালিকা থেকে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে খাবার দাবার নিয়ন্ত্রণ রাখা এবং পরিণত পরিমাণ ব্যায়াম করা। যদি পরিমিত পরিমাণ প্রতিদিন ব্যায়াম করতে পারেন তাহলে আপনার স্বাস্থ্য অনেকটা কমিয়ে আনতে পারবেন।

ওজন কমানোর উপায় ডায়েট

যদি ওজন কমাতে চান তাহলে আপনি এক মাসে সর্বোচ্চ ৫ থেকে ৬ কেজি পর্যন্ত আপনার শরীরের ওজন কমাতে পারবেন। তবে এর জন্য আপনাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। ব্যায়াম করা সহ খাবার দাবারে প্রচুর আপনাকে নিয়ন্ত্রণ রাখতে হবে। এ কথায় আপনাকে ডায়েট করতে হবে কিভাবে ডায়েট করবেন তার বিস্তারিত আলোচনা এখানে উল্লেখ করা হয়েছে। অতএব ওজন কমানোর ডায়েট চার্ট নিচের তালিকা গুলো থেকে দেখুন।

সকাল ৮ টায় খাবার তালিকাঃ

  • সকাল আটটার পূর্বে সেদ্ধ দুটি ডিম খেতে পারেন।
  • সকালে দুটি রুটি খেতে পারেন।
  • এবং ভেজিটেবল ওষুধ খেতে পারেন
  • ও এক বাটি জাম্বুরা

সকাল ১১ টায় খাবার তালিকাঃ

  • চিনি ছাড়া এক কাপ গ্রিন টি খেতে পারেন।
  • এবং একটি আপেল খান।

দুপুরে ২ টায় খাবার তালিকাঃ

  • দুপুর ২টায় এক বাটি ভাত খাবেন।
  • ১ বাটি মিক্স্ড ভেজিটেবল।
  • ১ কাপ ডাল।
  • এক টুকরা মাছ।

বিকেল ৫ টার খাবার তালিকাঃ

  • এ সময় চিনি ছাড়া গ্রিন টি খান।
  • ২ টি ক্রিম ছাড়া বিস্কিট খান।

সন্ধ্যা ৭টার খাবার তালিকাঃ

  • সন্ধ্যা সাতটা ডাবের পানি খাবেন।
  • নতুবা ৮ থেকে ১০ টি পেস্তা বাদাম খেতে পারেন।

রাত ৮ টার খাবার তালিকাঃ

  • এ সময় এক কাপ ভাত খাবেন।
  • এবং দুটি রুটি খাবেন।
  • এক কাপ সালাত এবং আধা কাপ সবজি।
  • এবং আধা কাপ টক দই খেতে পারেন।

লেবু দিয়ে ওজন কমানোর উপায়

লেবু রস খেয়েও ওজন কমানো সম্ভব। যদি সকালবেলা গ্লাস লেবুর রসের সাথে মধু মিশিয়ে খেলে ওজন কমানো যায়। আয়ুর্বেদও সকালে খালি পেটে লেবুর রস খাওয়ার পরামর্শ দেয়। লেবু হজম প্রক্রিয়ার উন্নতি ঘটায়। এছাড়াও আয়ুর্বেদিক বিশেষজ্ঞদের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করলে ওজন কমানো সম্ভব হয়।

এবং সাথে লেবুর রস খেতে পারেন যা আপনার পেটে থাকা ফ্যাট ও বার্ন করে। এই লেবুতে রয়েছে ফাইবার, পটাশিয়াম, ভিটামিন সি, ভিটামিন বি-৬, পেকটিন এবং সাইট্রিক অ্যাসিড। এছাড়াও এই লেবুতে রয়েছে পেকটিন যা খুদা নিয়ন্ত্রণে আপনাকে সাহায্য করবে।

এবং যারা জাঙ্ক ফুড খেতে পছন্দ করেন তাদের প্রতি এই খাবার অনেক বেশি উপকারী। এছাড়াও সকালবেলা গরম পানিতে  লেবুর রস মিশাতে পারেন। এরপর একটু জিরের গুড়ো এবং কয়েক টুকরো লেবু কেটে মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। সাথে এতে মধু মিশ্রণ করতে পারেন।

ব্যায়াম না করে ওজন কমানোর উপায়

বিভিন্ন কারণে শরীরের ওজন বৃদ্ধি হয়ে থাকে। তবে অনেকে রয়েছেন যারা ব্যস্ততার কারণে ব্যায়াম করতে পারছেন না। এবং প্রতিদিনের নির্দিষ্ট রুটিনের মধ্যে ব্যায়ামের তালিকা অ্যাড করতে পারছেন না। ফলে তাদের শরীরে ওজন কমানোতে অনেকটা কষ্ট হয়ে যাচ্ছে। তবে কিছু পদক্ষে অবলম্বন করলে ব্যায়াম না করেও শরীরের ওজন কমানোর সম্ভব হয়। তাই নিচের তালিকা গুলো ভালো করে লক্ষ্য করুন।

  • চেষ্টা করুন নিয়মিত পানি পান করার।
  • পানি পান করা যে উপকারী এটা সবারই জানা।
  • এবং চিনি খাওয়া বাদ দিন। চিনি খাওয়া বাদ দেওয়ার অর্থ হলো চিনি ও চিনিসমৃদ্ধ সকল খাবার গ্রহণ বাদ দিতে হবে।
  • প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার বাড়িয়ে দিন।
  • প্রতিদিন হাঁটুন,যত বেশি হাঁটবেন ওই শরীর তত সুস্থ থাকবে এবং ওজন কমাতে ততটা সহায়তা করবে।
  • এবং আপনার খাবারের তালিকায় ফাইবার-সমৃদ্ধ খাবার রাখুন।
  • আপনি যে খাবারই খাবেন তা ভালো করে চিবিয়ে খেয়ে নিন।

দ্রুত ওজন কমানোর উপায়

এখানে সামনে যা আসে তা দেখে মুখে লাগাম দিতে না পারার ফলেই শরীরের ওজন অনিয়মিতভাবে বৃদ্ধি পায়। চেষ্টা করতে হবে মুখের লাগাম দিতে। এবং পাশ করে এবং চলবে জাতীয় খাবার থেকে দূরে থাকতে। বিশেষ করে অতিরিক্ত খাবার খাওয়া যাবে না। প্রতিদিন খাবার তালিকা ১৪০০ থেকে ১৫০০ ক্যালোরির পরিমাপ করে গ্রহণ করতে হবে। তাহলেই শরীরের দ্রুত ওজন কমানো যাবে।

যদি কারোর শরীরের ওজন বেশি থাকে তাহলে তাদের হার্টের জন্য একাধিক ঝুঁকি বেড়ে যায়। তাই খাবার তালিকা পরিবর্তন করুন এবং প্রোটিন যুক্ত খাবার নিয়ন্ত্রণ করুন। কিভাবে আপনার শরীরের ওজন দ্রুত কমানো যায় তার উপায় নিচের দেওয়া তালিকা গুলো থেকে দেখে নিন সংক্ষিপ্ত আকারে। কিন্তু নিচে বিস্তারিত আকারে উল্লেখ করা হয়েছে।

  • সুষম খাবার গ্রহণ
  • অতিরিক্ত খাবার পরিহার করুন
  • খাওয়ার আগে পানি খানরঙিন সালাদ
  • গ্রিন টি
  • চিনি পরিহার করুন
  • পানি
  • রাতে তাড়াতাড়ি খাওয়ার চেষ্টা করুন
  • ব্যায়াম
  • পর্যাপ্ত বিশ্রাম
  • অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা পরিহার করুন।

শরীরের ওজন কমানোর উপায়

যে কারোর শরীরের ওজন পরিবর্তন করা সর্বপ্রথম ধাপ হচ্ছে খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তন করা। যদি খুব দ্রুত আপনি আপনার ওজন কমাতে চান তাহলে আপনার খাদ্য তালিকার বিশাল পরিবর্তন আনতে হবে। এজন্য সকালবেলা ভারী নাশতা এবং দুপুরে ভাত আর রাতে রুটি বা হালকা খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন।

এছাড়াও ওজন কমানোর দ্বিতীয় ধাপ হচ্ছে ও সুষম খাদ্য গ্রহণ করা। বেশি পরিমাণে শাকসবজি এবং ফলমূল খাওয়ার কারণে আপনার শরীরের ওজন অনেকটা হ্রাস পাবে। এমনকি ভাজাপোড়া এবং চর্বি জাতীয় সকল খাবার থেকে দূরে থাকুন। বাইরে ফাস্টফুড খাবার তো দূরের কথা,ওজন কমানোর ক্ষেত্রে এগুলো মনে ভুলেও খাওয়া যাবে না।

এরপরের ধাপ হচ্ছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে। ওজন কমানোর পাশাপাশি আপনাকে এ পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে। এবং সকল প্রকার টেনশন থেকে আপনাকে দূরে থাকতে হবে। যদি অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা করে থাকেন তাহলে ওজন কমার পরিবর্তে আপনার শরীরের বিভিন্ন রকম রোগের তৈরি হতে পারে। আর অন্তত কমপক্ষে 6 থেকে 8 ঘন্টা প্রতিদিন আপনাকে ঘুমাতে হবে। সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে অনেক ভরে ঘুম থেকে উঠে নামাজ পড়ুন।

এরপর থেকে সারাদিনের প্রয়োজনীয় রুটিন গুলো মেনে চলুন। আর এক মাসের ভিতরে যদি দ্রুত ৫ থেকে ৬ কেজি পর্যন্ত ওজন কমাতে চান তাহলে খুব ভোরে নামাজ আদায় করে আপনাকে কঠোর ব্যায়াম করতে হবে। ভরে ওঠে নামাজ পড়লে আপনার মন অনেকটা প্রফুল্ল থাকবে। তাই নামাজ অনেকটা গুরুত্বপূর্ণ।

৩০ দিনে ওজন কমানোর উপায়

জেনে রাখুন আপনার শরীরের যদি ওজন কমাতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে খাওয়া দাওয়ার ব্যাপারে বেশ সতর্ক থাকতে হবে। এবং আপনার খাওয়া দাওয়ায় ডায়েট করতে হবে। যদি আপনার খাওয়া-দাওয়া ঠিক মতো নিয়ন্ত্রণ করতে না পারেন তাহলে আপনার ওজন কোনভাবেই কমবে না। তবে ৩০ দিনে তিন থেকে পাঁচ কেজি পর্যন্ত আপনার ওজন কমানো সম্ভব। তাই ৩ ওজন কমানোর উপায় গুলো নিচের আলোচনা থেকে দেখে নিন।

  • সকাল দুপুর এবং রাতের খাবারের পূর্বে ২ গ্লাস ঠান্ডা পানি পান করবেন।
  • সকালে খাবারের তালিকা ব্রোকলি লেটুস এবং পালং শাক রাখতে পারেন।
  • এবং সকালে খালি পেটে একটু লেবু এবং আদা চামচ মধু হালকা গরম করে খেতে পারেন।
  • রাতে ঘুমানোর ২ ঘন্টা আগে খাবার খেয়ে নিন।
  • যখন সালাদ তৈরি করবেন অন্যান্য তেলের পরিবর্তে অলিভ অয়েল তেল ব্যবহার করুন।

এই খাবারের তালিকা আপনার খুব অল্প দিনে পাঁচ থেকে ছয় কেজি পর্যন্ত ওজন কমাতে সাহায্য করবে। তবে উপরের লিস্টের যে তালিকা উল্লেখ করা হয়েছে তা আপনাকে কঠোরভাবে পালন করতে হবে। আশা করা যায় আপনার এক মাসের ভিতরে অনেকটা ওজন হ্রাস পাবে।

ওজন কমানোর উপায় ঔষধ

আমাদের শরীরের ওজন কমাতে হলে অবশ্যই শরীরের চর্বি কমানোর বা চর্বি শোষণ করার ওষুধ গ্রহণ করতে হবে। এরমধ্যে শরীরের ওজন কমানোর উল্লেখিত একটি ঔষধের নাম হচ্ছে জিরোফ্যাট ১২০ এম জি ক্যাপসুল। এছাড়াও ওজন কমানোর উপায় একটি উপায় এর মধ্যে ওষুধ খাওয়া অন্যতম একটি উপায়। তাই নিচে কয়েকটি ওষুধের নাম উল্লেখ করা হলো। তবে নিচে দেওয়া ওষুধ গুলো অবশ্যই একজন ডাক্তারের সাথে পরামর্শ নিয়ে গ্রহণ করবেন।

  • Cobese 120 MG Capsule
  • O Stat 120 MG Capsule
  • Obelit 120 MG Capsule)
  • Oblix 120 MG Capsule)
  • Orlica 120 MG Capsule

শেষ কথা

শরীরের ওজন বৃদ্ধি করা যেমন কঠিন তেমনি শরীরের ওজন কমিয়ে নেওয়া তার থেকে বেশি কঠিন। তবে সঠিক পদ্ধতি এবং দৃঢ় ইচ্ছা থাকলে যে কোন কাজ খুব সহজেই করা যায়। আজকের আলোচনায় খুব সহজভাবে ওজন কমানোর উপায় উল্লেখ করা হয়েছে। আশা করি আপনি এখান থেকে উপায় গুলো পরবর্তীতে মেনে চলবে। তাই এই পোস্ট থেকে যদি উপ্রকৃত হয়ে থাকেন  তাহলে অবশ্যই আপনার আশেপাশের ব্যক্তিদেরকে শেয়ার করে জানিয়ে দিবেন। ধন্যবাদ

Leave a Comment