রক্তশূন্যতা দূর করার ঘরোয়া উপায় জানুন

আপনার প্রতিদিনের খাবার তালিকায় আয়রন যুক্ত খাবার রাখুন। কেননা আয়রনযুক্ত খাবার আপনার রক্তশূন্যতা দূর করতে অনেকটা সাহায্য করে। প্রতিদিন আপনার খাবার তালিকায় শাকসবজি রাখুন। এবং দুই থেকে তিনটি করে আয়রনযুক্ত ফল। সাধারণত আমাদের রক্তে যদি হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ স্বাভাবিক থেকে একটু কমে যায় তাহলেই আমাদের শরীরে রক্তশূন্যতা দেখা দেয়।

এর ফলে শরীরে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে। তবে এই রক্তশূন্যতা আমরা খুব সহজেই দূর করতে পারি। কোন প্রকার ওষুধ না খেয়েই আমরা আমাদের খাদ্য তালিকায় প্রয়োজনীয় ভিটামিনযুক্ত খাবার খেয়ে খুব সহজেই এই রক্তশূন্যতা দূর করতে পারি। তাই রক্তশূন্যতা দূর করার ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করুন। এবং কিভাবে এর ঘরোয়া উপায় গুলো মেনে চলবেন তা বিস্তারিত আমাদের এই পোস্ট থেকে দেখুন।

রক্তশূন্যতা দূর করার ঘরোয়া উপায়

এই রক্তশূন্যতা সাধারণ একটি রোগ। ছোট থেকে বয়স্ক ব্যক্তিদের মাঝেও এই রক্ত শূন্যতা দেখা দিয়ে থাকে। তবে সাধারণত একজন ব্যক্তির রক্তশূন্যতা দেখা দিলে মাঝেমধ্যে ক্লান্তি ভাব দেখা দিতে পারে। বমি বমি ভাব এবং অবসন্নতা,ছোট শ্বাস ও বেশি ঠান্ডা অনুভব করা ইত্যাদি। তবে বেশ কিছু খাবার রয়েছে যা আমরা ঘরোয়া উপায়ে এই রক্তশূন্যতা দূর করতে পারি।

এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে আয়রন যুক্ত খাবার গ্রহণ করা। বিশেষ করে মধু গ্রহণ করা, রাতে ঘুমানোর পূর্বে ডিম এবং দুধ খাওয়া। এবং ঘুম থেকে উঠে দুধ কলা ইত্যাদি  খেয়ে নেওয়া। এবং প্রতিদিনের খাবার তালিকায় বেশি বেশি শাকসবজি রাখা। এছাড়াও আরও উল্লেখযোগ্য উপায় রয়েছে, যে উপায় গুলো অবলম্বন করলে রক্তশূন্যতা খুব সহজে দূর করা যায়। শেষ পর্যন্ত এই পোস্ট বিস্তারিত দেখুন।

রক্তশূন্যতা দূর করে যেসব খাবার

এ রক্তশূন্যতা হল রক্তের একটি রোগ। যেখানে রক্তে লোহিত রক্তকণিকা বা হিমোগ্লোবিন স্বাভাবিক সংখ্যার চেয়ে কম থাকে। তবে রক্ত কণিকা বা হিমোগ্লোবিন স্বাভাবিক করতে বিভিন্ন খাবার রয়েছে। অতএব সে খাবারগুলো আপনাকে নিয়মিত খেতে হবে। তাই জেনে নিন রক্তশূন্যতা দূর করতে যেসব খাবার সমূহ অতি প্রয়োজনীয়।

  • কলিজা
  • দুধ
  • মাছ 
  • ফলমূল
  • খেজুর 
  • টমেটো 
  • চিনা বাদাম 
  • শাকসবজি
  • ডাল 
  • ডিম
  • মধু 
  • এবং সয়াবিন।

রক্তশূন্যতার লক্ষণ ও তার প্রতিকার

শরীরে লোহিত রক্ত কণিকার পরিমাণ কমে গেলে অক্সিজেনের বহন ক্ষমতা হ্রাস পেয়ে যায়। ও ফলে ধীরে ধীরে রক্তশূন্যতার মতো রোগ দেখা দিয়ে থাকে। এর ফলে একজন রোগীর বিভিন্ন সমস্যা হয়, যেমন মাথা ব্যথা করা,বমি হওয়া, শ্বাসকষ্ট ও দুর্বলতা আরো ইত্যাদি। নিচে থেকে রক্ত শূন্যতার আরো লক্ষণ গুলো জেনে নিন।

  • রক্তশূন্যতার প্রদান লক্ষণ রক্তের হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ কমে যাওয়া।  এবং ভিটামিন বি১২ ও আয়রনযুক্ত খাবারের পরিমাণ কমে যাওয়া।
  • রক্তস্বল্পতা তখনই হয় যখন রক্তে অক্সিজেন বহন করার ক্ষমতা কমে যায়।
  • এই রক্ত স্বল্পতায় আক্রান্ত রোগী ক্লান্ত, দুর্বল, মনোনিবেশ করার ক্ষমতা হ্রাস, এবং কখনও কখনও পরিশ্রমে শ্বাসকষ্ট অনুভব করতে পারে।
  • বুকে ব্যথা করা
  • বিভ্রান্তি হওয়া
  • শ্বাসকষ্টের সমস্যা হওয়া
  • মাথা ঘোরা বা মাথা ব্যথা
  • বমি হওয়া
  • শরীর দুর্বল অনুভব হওয়া
  • তৃষ্ণা বৃদ্ধি পাওয়া 
  • মারা যাওয়ার মতো অনুভূতি তৈরি হওয়া
  • শারীরিক পরিশ্রমের অভাব
  • অনিমিত স্পন্দন হওয়া
  • হাত পা ঠান্ডা হয়ে যাওয়া
  • ক্ষুধামন্দ মন্দা
  • মাসিকের সময় রক্তক্ষরণ হওয়া
  • সন্তান জন্মদানকারী রক্তক্ষরণ হওয়া
  • পেশির দুর্বলতা অনুভব করা 

আরো ইত্যাদি উপসর্গ একজন রক্তস্বল্পতার ব্যক্তির উপর লক্ষ্যণীয় হতে পারে।

রক্তশূন্যতা দূর করার ঘরোয়া উপায় গুলো কি

আমাদের শরীরের প্রতিনিয়ত রক্ত ক্ষয় হয়ে অ্যামোনিয়া হতে পারে। আর আস্তে আস্তে দীর্ঘদিন ধরে এই রক্তের ক্ষয় হওয়ার কারণেই আমাদের শরীরের রক্তশূন্যতা দেখা দিয়ে থাকে। আমাদের শরীরে যখন লোহিত রক্তকণিকা বা হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ কমে যায় ঠিক তখনই এই রক্তশূন্যতা দেখা দিয়ে থাকে।

আর এই রক্তশূন্যতা এটা আমাদের শরীরের ক্যান্সারের রোগ সৃষ্টি করতে পারে। এমনকি মাসিকের সময় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ এবং সন্তান জন্মদান কালেও রক্তক্ষরণের এটি একমাত্র কারণ হতে পারে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে আমাদের শরীরের বিভিন্ন ধরনের ভিটামিনের অভাবে, আয়রনের হবে রক্তশূন্যতা দেখা দেয়। জেনে নিন রক্তশূন্যতা দূর করার ঘরোয়া উপায় গুলো সম্পর্কে।

  • সর্বপ্রথম আপনার বাড়িতে বসেই যেকোনো ধরনের আয়রনযুক্ত খাবার গ্রহণ করার চেষ্টা করুন। এর মধ্যে আয়রনযুক্ত খাবার হতে পারে এটা মোটামুটি ক্যাপ্রিকাম ইত্যাদি। অর্থাৎ ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবারও এই আয়রনের অন্যতম একটি উৎস।
  • অর্থাৎ এ আইরন যুক্ত খাবার গ্রহণ করবেন সাথে এই আয়রন যুক্ত খাবারের পরিমাণ একটু বাড়িয়ে দিন। প্রতিদিনের খাবার তালিকায় আপনি সবুজ শাকসবজি রাখতে পারেন। প্রচুর পরিমাণে মাছ-মাংস বাদাম ইত্যাদি রাখতে পারেন। এছাড়াও কচু,কলিজা এসব খাবারে প্রচুর পরিমাণে আইরন থাকে তাই বেশি বেশি খেয়ে নিন।
  • যদি রাতে মাছ মাংস ডিম খেয়ে থাকেন তাহলে তার পর পরই খাবেন না।  এই খাবারগুলো খাওয়ার এক থেকে দুই ঘন্টা পর দুধ খেতে পারেন। তবেই আপনার এই রক্তস্বল্পতা দূর করতে কার্যকরী হবে।
  • প্রতিদিন নিয়ম করে মধু খান, সাথে কালোজিরা খেতে পারেন।
  • সকালে এবং রাতে দুটি করে কলা খান। এবং বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি এবং ফল খাবার করার চেষ্টা করুন।
  • রক্তস্বল্পতা দূর করতে ভিটামিন বি১২ কাজে আসে অনেকটা। তার ভিটামিন বি ১২ সমৃদ্ধ খাবারগুলো গ্রহণ করুন। যেমন কলা, কমলা, ডিম,দুগ্ধজাত খাদ্য খেতে পারেন। কারণ এগুলোতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি ১২ এবং ফোলেট রয়েছে।
  • আয়রন দিয়ে বানানো সকল পাত্রে খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন এবং এতে প্রমাণিত হয়েছে যে আইরনরাত্রে খাবার রান্না করলে খাবারে আয়রনের পরিমাণ একটু বেড়ে যায়।

আশা করা যায় যে এই ঘরোয়া উপায়গুলো অবলম্বন করলে আপনার রক্তস্বল্পতা খুব দ্রুত ঠিক হয়ে যাবে।

রক্তশূন্যতা দূর করতে মধু খান

যেহেতু আয়রনযুক্ত খাবার খেলে রক্ত শূন্যতা দূর করা যায়। তাই আয়রনের একটি অন্যতম ভালো উৎস হচ্ছে মধু। তাই আপনি যদি রক্তশূন্যতা বা রক্তস্বল্পতায় ভুগে থাকেন তাহলে প্রতিদিন সকালে এবং রাতে ঘুমানো পূর্বে এক চামচ করে মধু খান। আশা করা যায় কয়েকদিন এই নিয়ম করে মধু খাওয়ার ফলে আপনার রক্তস্বল্পতা বা রক্তশূন্যতা অনেকাংশে রাজ পাবে।

মেয়েদের রক্ত শূন্যতা দূর করার উপায়

যদি কোন মেয়ের রক্তশূন্যতা দেখা দিয়ে থাকে তাহলে এক্ষেত্রে কয়েকটি লক্ষণ দেখা দিতে পারে। যেমন মুখ ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া,দুর্বলতা অনুভব করা,  ক্লান্তি,মাথা ঘোরা, মাথা ব্যথা এবং চোখের ঝাপসা দেখা। এবং রক্তশূন্যতা তীব্র হলে শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা হওয়া।

এক্ষেত্রে অনেকে বলে থাকেন আইরন ট্যাবলেট খেলে মেয়েদের রক্তশূন্যতা অনেকাংশে দূর করা যায়। তবে এ ধারণা ঠিক নয়। তবে মেয়েদের ক্ষেত্রে রক্তশূন্যতার মতো রোগ দেখা দিলে, তা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী বিভিন্ন পরীক্ষা করে ওষুধ গ্রহণ করা উচিত।

তবে এছাড়া বাড়িতে বসে বিভিন্ন খাবারের মধ্যে আয়রন যুক্ত খাবার যোগ করা যেতে পারে। তাই আপনার খাবারের তালিকায় কচু শাক, ডাটা শাক, পালং শাক ,কাঁচা কলা, সামুদ্রিক মাছ কলিজা গরু এবং খাসির মাংস রাখতে পারেন। এইসব খাবারে প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকে। এছাড়া ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী যেকোনো ধরনের ওষুধ গ্রহণ করতে পারেন।

রক্তশূন্যতা দূর করার ওষুধের নাম কি

আপনার রক্ত শূন্যতা দূর করার জন্য আপনি বাড়িতে বসে বিভিন্ন খাবার গ্রহণ করার পাশাপাশি ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী বিভিন্ন ওষুধ খেতে পারেন। তবে ওষুধ গ্রহণ করার পর অবশ্যই আপনাকে এই রক্তস্বল্পতা নিয়ে বিভিন্ন পরীক্ষা করাতে হবে। এরপর আপনার ডাক্তারকে সে রিপোর্ট দেখিয়ে বিভিন্ন ওষুধ গ্রহণ করুন।

তবে সাধারণত রক্তস্বল্পতা দূর করতে একজন ব্যক্তির জন্য ডাক্তার যে যে ওষুধগুলো নির্দেশনা অনুযায়ী দিয়ে থাকেন তার কয়েকটি নাম এখানে উল্লেখ করা হলো। আর এই ওষুধগুলোই মূলত রক্তস্বল্পতা দূর করার জন্য বিভিন্ন ধরনের রোগীদেরকে গ্রহণ করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

  • নিউরো বি
  • সলবিয়ন
  • Revofer 500Mg Injection
  • Neuvital
  • Neubion
  • Mecolagin
  • বোস্ট
  • MB 12
  • Bicozin tablet
  • NEUBION TAB

শরীরের শক্তি বৃদ্ধির উপায়

রক্তস্বল্পতা দূর দূর করার আর পাশাপাশি যদি আপনার শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করতে চান তাহলে নিচে দেওয়া কয়েকটি উপায় গুলো আপনি দেখতে পারেন। কেননা সুস্থ থাকার জন্য শরীরের শক্তি অনেক বেশি প্রয়োজনীয়। তাই শরীরের প্রতি বৃদ্ধির কয়েকটি উপায় দেখে নিন।

  • ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খান
  • কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট খান
  • পর্যাপ্ত পানি পান করুন
  • নিয়মিত পালংশাক খান
  • অস্বাস্থ্যকর ফ্যাট কমিয়ে ফেলুন
  • প্রতিদিন শরীরচর্চা করুন
  • পর্যাপ্ত ঘুমান

উপরে দেওয়া কয়েকটি পয়েন্ট যদি আপনি প্রতিদিন নিয়ম করে চলতে পারেন। তাহলে আপনি আপনার শরীরের শক্তি অনেক আংশে বুদ্ধি করতে পারবেন। এছাড়াও যাদের রক্তস্বল্পতা রয়েছে তারা রক্তস্বল্পতা দূর করতে এই পোস্ট থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ জেনে নিয়ে সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করুন।

গর্ভবতী মায়েদের রক্তশূন্যতা দূর করার উপায়

যদি গর্ভাবস্থায় চাহিদা মাফিক লৌহ পূরণ না হয় তাহলে গর্ভবতী মায়েদের ক্ষেত্রে রক্তশূন্যতা দেখা দেয়। আর একজন গর্ভবতী মায়েদের রক্তের পরিমাণ ১৫ থেকে ২০% থাকে। যদি পূর্ব থেকেই গর্ভবতী মায়ের শরীরে রক্তের পরিমাণ কম থাকে তাহলে শিশুর জন্য একটু ঝুঁকিপূর্ণ হয়। গর্ভধারণের ধারনের পরেও অনেক গর্ভবতী মহিলার শরীরে রক্তশূন্যতা দেখা দেয়।

অনেক সময় গর্ভবতী মায়ের রক্তস্বল্পতা থাকার কারণে তাদের শরীর অনেকটা দুর্বল লাগে এবং মাথা ঝিমঝিম করে। ও কোন কাজ করলে একটুতেই না ক্লান্ত হয়ে যায়। এছাড়াও ফ্যাকাসে বিবর্ণ মুখ ও চোখ সাদা হয়ে যাওয়া, জিহ্বা ও মুখে ঘা, রক্তশূন্যতা বেশি হলে বুক ধড়ফড় করা ইত্যাদি লক্ষণীয় হতে পারে।

তো এই সময় কয়েকটি খাবার গ্রহণ করলে গর্ভবতী মায়েদের রক্তশূন্যতা দূর করা যায়। যেমন গর্ভধারণের প্রথম থেকেই যথেষ্ট লৌহসমৃদ্ধ খাবার খান। উদাহরণস্বরূপ আপনি কচুশাক খেতে পারেন। এবং মাঝেমধ্যে কাঁচা কলা, পেয়ারা, শিম, মটরডাল, বাঁধাকপি, কলিজা, গোশত, খোলসসহ মাছ, যেমন চিংড়ি মাছ প্রতিদিনের রান্নায় রাখতে পারেন। গর্ভবতী মহিলারা অনেকটা সুস্থ থাকবে।

শিশুর রক্তশূন্যতা দূর করার উপায়

একজন শিশুর ক্ষেত্রেও শরীরে আয়রনের অভাব দেখা দিতে পারে। ফলে শিশুর শরীরেও রক্তস্বল্পতার মত এরকম লক্ষণীয় হয়। তবে ঘাবড়ে যাওয়ার কিছু নেই, সঠিক চিকিৎসা এবং সঠিক পদক্ষেপ অবলম্বন করলেই শিশুর রক্তশূন্যতা দূর করা যায়।

এজন্য আপনার শিশুর প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় মাছ, মাংস, তাজা শাকসবজি ও ফলমূল ইত্যাদি রাখতে পারেন। তবে শিশু যদি অনেকটা ছোট হয়ে থাকে, তাহলে উপরের খাদ্যগুলো খাওয়ানোর   অভ্যাস করে তুলতে পারেন। এছাড়াও আপনার শিশুর রক্তস্বল্পতা প্রতিরোধের জন্য প্রতিদিনের খাবারে লৌহ, আমিষ, ভিটামিন সি, ফলিক অ্যাসিড ও ভিটামিন-১২ রাখতে পারেন।

শেষ কথা 

আশা করতেছি আপনারা এই পোস্ট থেকে রক্তশূন্যতা দূর করার ঘরোয়া উপায় গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। রক্তশূন্যতা বিভিন্ন কারণেই হয়ে থাকে। তবে এই রোগ নিরাময় করা অতি দরকার। না হলে এ থেকে আরও অনান্য হতে পারে। আশা করছি কিভাবে এর প্রতিকার করবেন এবং কিভাবে তা দূর করবেন তা এখান থেকে জানতে পেরেছেন। অতএব এই পোস্ট উপকৃত মনে হলে অবশ্যই অন্যদের মাঝে শেয়ার করে জানিয়ে দিন। ধন্যবাদ

Leave a Comment